Jul 14, 2024
Headlines

Mamata on Land Department : "রাজ্যের ৯৯% BLLRO অসৎ, আর না হলে চুরি করছে, টেনেটুনে ১% সৎ ভাবে কাজ করে" বাংলার ভূমি দপ্তরের কেলেঙ্কারি নিয়ে বিস্ফোরক মুখ্যমন্ত্রী

post-img

সুষমা পাল মন্ডল। কলকাতা সারাদিন। 


রাজ্যের ভূমি রাজস্ব মন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই। তারপরেও রাজ ধর্ম পালনের স্বার্থে নিজের দপ্তরের আধিকারিকদের সরাসরি চোর বলতে ও বিন্দুমাত্র দ্বিধা বোধ করলেন না মমতা।

সোমবার নবান্ন সভাঘরে প্রশাসনিক বৈঠকে অন্যান্য দপ্তরের পাশাপাশি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করলেন নিজের অধীনে থাকা ভূমি দপ্তরের কাজকর্ম নিয়ে। 

যেভাবে পৌরসভায় এবং পঞ্চায়েত এলাকাগুলিতেও ভূমি দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে অশুভাতাতে পুলিশ এবং স্থানীয় তৃণমূল নেতারা বেআইনি নির্মাণ করে চলেছে এবং জলা জমি ভরাট করে চলেছে। তার জন্য রাজ্যের ৯৯% বি এল আর ও অফিসার চুরির সঙ্গে যুক্ত রয়েছে বলেও সরাসরি অভিযোগ করেন তিনি। 


আমলা থেকে পুলিশ, রেহাই পাননি কেউ। সোমবার নবান্ন সভাঘরের প্রশাসনিক বৈঠকে পুর পরিষেবা নিয়ে ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। এর পরই একাধিক পদে রদবদল ঘটাল নবান্ন। তিনি বনদপ্তরের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব বিবেক কুমারকে ভূমি দপ্তর দেখার কথা বলেন। বনদপ্তরের দায়িত্ব থেকে ভূমি দপ্তরের দায়িত্ব দেওয়া হয় বিবেক কুমারকে। অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসাবে তাঁর কাছে প্রাণিসম্পদ দপ্তরটিও রইল। বনদপ্তরের দায়িত্বে এলেন অগ্নিনির্বাপণ ও আপৎকালীন পরিষেবা দপ্তরের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব মনোজ কুমার আগরওয়াল। বনদপ্তরটি থাকছে তাঁর অতিরিক্ত দায়িত্বে।

সেই মতো এদিন রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক বিনোদ কুমারকে পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তরের প্রধান সচিব করা হয়েছে। আর এক অতিরিক্ত মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক স্মারকি মহাপাত্রকে জনশিক্ষা প্রসার ও গ্রন্থাগার দপ্তরের সচিব করা হল। সমবায়ের সঙ্গে এই দপ্তরেরও দায়িত্বে ছিলেন কৃষ্ণ গুপ্তা। তাঁকে শুধু সমবায় দপ্তরটি দেওয়া হয়েছে।


বিভিন্ন ব্যাপারে মানুষ কেন ঠিকঠাক পরিষেবা পাচ্ছেন না তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। কথা প্রসঙ্গে উঠে আসে গড়িয়াহাট ও হাতিবাগানের হকার ইস্যু (Hawker issue)। এই বিষয়ে কলকাতা পুরসভাকে তীব্র ভর্ৎসনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee)।


তোপ দেগে বলেন, "গড়িয়াহাট ও হাতিবাগানে কী হচ্ছে। রাস্তার ফুটপাথ দখল করে এত দোকান তৈরি হয়ে গেছে যে সাধারণ মানুষের পক্ষে হাঁটাচলা করাও দুষ্কর হয়ে পড়েছে। নোংরা করে রেখে দিয়েছে গোটা এলাকা। যেখানে সেখানে বেআইনি নির্মাণ, কেন গ্রেফতার নয়? কেন ভাঙা হচ্ছে না? কারও কারও অভ্যেস হয়ে গিয়েছে। ডিএম, এসডিও, আইসি হলে ভাবে সঞ্চয় করে নিই। এভাবে চলতে দেওয়া যাবে না। কেউ যেন ভাবে না যে আমি কিছু করব না। অবিলম্বে গড়িয়াহাট ও হাতিবাগানের ফুটপাথ সাধারণের চলাচলের উপযুক্ত করতে হবে। নোংরা পরিষ্কার করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে হবে। বেআইনি নির্মাণ রুখে দোষীদের গ্রেফতারের ব্যবস্থা করতে হবে। না হলে আমি কড় পদক্ষেপ নেব। যারা আমার কথা শুনবে না তাদের সরিয়ে দেওয়া হবে।" 


দলের নেতা, মন্ত্রী, বিধায়ক, পদাধিকারীদের কড়া বার্তা তো দিলেনই, একই সঙ্গে বড় ঘোষণা প্রশাসনের আধিকারিকদের নিয়েও। জানালেন, রিভিউ ভিজিল্যান্স হবে। নজরে রাখার জন্য আলাদা কমিটি থাকবে। উন্নয়নের কাজে কোনওরকম বাধা সহ্য করা হবে না বলে এদিন কড়া বার্তা দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, “অনেক অফিসার আসেন, ভাবেন তিনি তো দু’বছর থাকবেন। কোনওরকমে কাটিয়ে দিতে পারলেই হল। কিন্তু সেটা তো হবে না। আপনি দু’বছর থাকলেও মনে রাখবেন আপনার কার্যসময়ের রিভিউ হবে। আপনি যাওয়ার আগে স্বচ্ছতা মেনে চলেছেন কি না তাও দেখা হবে। এখন থেকে রিভিউ কমিটি সেটা দেখবে। সেখানে ভিজিল্যান্স থাকবে, এসিপিকে রাখা হবে, সিআইডিকে রাখা হবে। এডিজি ল’ অ্যান্ড অর্ডার থাকবে। ডাইরেক্টর অব সিকিউরিটিকেও এখানে থাকতে বলব। পাবলিক সিকিউরিটিটা যেহেতু তাদের দেখতে হয়।”


কী করছে পুরকভা, কর্পোরেশন। সরাসরি প্রশ্ন তুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিদ্যুতের অপচয় হয়ে চলেছে কারোর কোনও ভ্রুক্ষেপ নেই। কার্যত অগ্নিশর্মা হয়েই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্ট্রিট লাইটের আলো জ্বলার সময় বেঁধে দিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কড়া নির্দেশ দিয়েছেন ভোর সাড়ে ৫টার পরে যেন রাস্তার কোনও আলো না জ্বলে থাকে সেটা নজরে রাখতে হবে। 


কেবল মুখে বললেই হবে না কাজে করে দেখাতে হবে। দিনের বেলায় কোনও রাস্তার আলো যাতে না জ্বলে সেদিকে নজর রাখতে হবে।


সরাসরি রাজ্যের পুরসভাগুলিকে ভর্ৎসনা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুরসভাগুলি কোনও কাজ করছে না বূলেই রাজ্য সরকারের উপর ক্ষোভ বাড়ছে। বৈঠকের শুরুতেই কার্যত হাওড়া এবং বালি পুরসভাকে তুলোধনা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কাজ না করলে পুরসভাগুলিকে রাখার কি দরকার। তীব্র ভর্ৎসনা করে বলেছেন মমতা।

Related Post

About Us

24 Hour Online Bengali & English News Portal Registered under Government of India. Head Office in Kokata.

Need Help? Connect Now