Jul 14, 2024
Political

Suvendu Demands CBI : চোপড়াকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের দাবি শুভেন্দু অধিকারীর

post-img

শৌভিক তালুকদার। কলকাতা সারাদিন।


চোপড়াকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের দাবিতে সরব হলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। বৃহস্পতিবার শুভেন্দু, বিধানসভায় বিজেপির মুখ্য সচেতক শংকর ঘোষ সহ বিধায়কদের এক প্রতিনিধি দল চোপড়া থানায় গিয়ে আইসির সঙ্গে দেখা করেন। শুভেন্দু বলেন, "আইসি যাতে পালিয়ে না যান সে কারণে আগাম না জানিয়ে থানায় আসতে হয়েছে। চোপড়ায় খাপ পঞ্চায়েত চলছে। এখানে পঞ্চায়েতে ভোট করতে দেওয়া হয়নি।"


সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, "চোপড়ায় যা ঘটেছে বাংলা ও বাঙালির মাথা হেঁট হয়েছে। আইসি মিট করেছেন। আমরা যা বলেছি সাত আট মিনিট তিনি শুনে যাচ্ছেন। না গিলতে পারছেন, না ফেলতে পারছেন। হামিদুল রহমান এখানে প্যারালাল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন চালায়। এখানে কোনও গণতন্ত্র নেই। কোনও দলের অস্তিত্ব রাখতে চান না। এবারও অন্তত দেড়শো বুথ লুঠ করেছে। তাজিমুলের নেতৃত্বে গ্যাং অফ গুন্ডা নতুন নয়। পঞ্চায়েত ভোটেও সে নির্যাতন চালিয়েছে। একদিনের ঘটনা নয়। গত কয়েক বছর ধরে পুলিশের সরাসরি প্রশ্রয়ে একটা জঙ্গলের রাজ কায়েম করা হয়েছে। আমাদের মনে হচ্ছে চোপড়াটা ভারতের বাইরে।" কোচবিহার এবং চোপড়ার ঘটনার সিবিআই তদন্তের ব্যাপারে রাজ্য সরকারকে বলা হয়েছে বলে জানান তিনি। না হলে তাঁরা আইনি পথে হাঁটবেন।


প্রসঙ্গত, সম্প্রতি প্রকাশ্যে আসা একটি ভাইরাল ভিডিও-তে দেখা যায় রাস্তায় ফেলে এক তরুণ ও তরুণীকে বেধড়ক পেটাচ্ছেন তাজিমুল ইসলাম নামে এক তৃণমূল নেতা। এই ভিডিও ভাইরাল হতেই শোরগোল পড়ে যায়। পুলিশ তড়িঘড়ি তাজিমুলকে গ্রেফতার করে। ধরা পড়েছে তার কয়েকজন সঙ্গীও। 

অন্যদিকে, উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ বিধানসভার উপনির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী মানসকুমার ঘোষের সমর্থনে মধুপুরে যাওয়ার পথে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে কালো পতাকা দেখালেন একদল তৃণমূলকর্মী। বিরোধী দলনেতার কুশপুত্তলিকাও দাহ করেন তারা। যদিও আন্দোলনকারীদের দাবি, তারা সাধারণ মানুষ। কোনও দলের সদস্য নয় তারা। তবে শুভেন্দুকে কালো পতাকা দেখানোর কথা বলেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী কৃষ্ণ কল্যাণী। আন্দোলনকারী আনোয়ার আলি বলেন, 'রায়গঞ্জ পুরসভার ভোট লুঠের মাস্টার মাইন্ড ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তার রাজনীতি মানেই বিশৃঙ্খলা ও উত্তেজনা তৈরি। গুন্ডা বাহিনী নিয়ে ভোট পরিকল্পনা রয়েছে ওনার। মানুষের ভোটাধিকার হরণ করতে চান উনি। তাই আজকের এই প্রতিবাদ।'


যদিও এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে সাংসদ কার্তিক পাল বলেন, 'এরকম ঘটনা যদি করে থাকে তবে অন্যায় হয়েছে। কারণ আমাদের এলাকার এটি সংস্কৃতি নয়। আগামীতে যে যেরকম পথ দেখাবে সে সেরকমভাবে চলবে।' তিনি পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, 'পুলিশ শাসকদলের হয়ে কাজ করছেন। তাই তাদের উর্দি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসের ঝাণ্ডা নেওয়া উচিত।'


Related Post

About Us

24 Hour Online Bengali & English News Portal Registered under Government of India. Head Office in Kokata.

Need Help? Connect Now