Jul 14, 2024
Headlines

Land Department Scam : "ভূমি দপ্তরে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি বন্ধ করুন, লিভ এগ্রিমেন্ট এর আবেদন নিষ্পত্তি করে রাজস্ব বাড়ান" ভূমি দপ্তরের আধিকারিকদের নির্দেশ প্রিন্সিপাল সেক্রেটারির

সুমন তরফদার। কলকাতা সারাদিন।

সম্প্রতি নবান্নে রাজ্যের পুরসভাগুলির মেয়র, চেয়ারম্যানদের নিয়ে একটি বৈঠক করেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি ভূমি ও ভূমিসংস্কার দফতরের কাজ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন। শুধু তাই নয়, এদিনের বৈঠকের পরেই সংশ্লিষ্ট দফতরের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় অতিরিক্ত মুখ্যসচিব বিবেক কুমারের হাতে।

দায়িত্ব পাওয়ার পরেই শুক্রবার তিনি বিএলআরও-দের নিয়ে একটি বৈঠক করেন। পাশাপাশি এদিনের বৈঠকে দফতরের অন্যান্য আধিকারিক সহ প্রায় ৫০০ জন উপস্থিত ছিলেন। নবান্নে বৈঠকে বিএলআরও-দের কাজ নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করতে শোনা গিয়েছিল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সূত্রের খবর, এদিনের বৈঠকে সমস্ত বিএলআরও-কে স্বচ্ছতার সঙ্গে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি কোনওভাবেই যাতে সরকারি জমি জবরদখল হয়ে না যায় এবং রাজস্ব ফাঁকি যাতে ঠেকানো যায় সেই দিকে বিশেষ নজর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

সাধারণ মানুষের হয়রানি যে কোনওভাবেই মেনে নেওয়া হবে না, সেই বার্তাও দেওয়া হয়েছে এদিনের বৈঠকে। উল্লেখ্য, সরকারি জমি জবরদখল নিয়ে বৈঠকে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরেই স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে, সরকারি জমির কাস্টডিয়ান রাজ্যের ভূমি ও ভূমিসংস্কার দফতর। সেই দায়িত্বে কোনও রকম ফাঁকফোকর রাখা যাবে না। সরকারের যে সমস্ত খালি জমি রয়েছে সেখানে অবিলম্বে লাগাতে হবে সাইনবোর্ডও। কোনও সরকারি জমি যাতে কেউ দখল করতে না পারে সেই দিকে নজর দিতে হবে।

লিজ নেওয়ার আবেদন পড়ে থাকার কারণে যাতে কোনওভাবেই রাজস্ব মার না খায় সেই দিকে বিশেষ নজর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। উল্লেখ্য, অভিযোগ, রাজ্যের প্রাপ্য প্রায় ১ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা আটকে রেখেছে কেন্দ্র। এই অবস্থায় পরিষেবা জারি রাখার জন্য রাজস্ব আদায় বৃদ্ধির উপর বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে। সেক্ষেত্রে জমি লিজের আবেদনগুলি যদি দ্রুত যাচাই করা হয় সেক্ষেত্রে অনেকটাই টাকা ঢুকবে সরকারের অর্থভাঁড়ারে। পাশাপাশি ইটভাটার বকেয়া রয়্যালিটি সময়ে আদায় হলেও লাভ হবে রাজ্য়ের।

পাশাপাশি দরিদ্রদের পাট্টা দেওয়ার জন্যও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে। সেই কাজ কতটা এগিয়ে গেল সেই দিকেও নজর দিতে হবে বলে এদিনের বৈঠকে বার্তা দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর। সবমিলিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বার্তার পরেই ভূমি ও ভূমিসংস্কার দফতরের হাল শক্ত করে ধরতে চাইছেন অতিরিক্ত মুখ্যসচিব বিবেক কুমার, তা স্পষ্ট।

Related Post

About Us

24 Hour Online Bengali & English News Portal Registered under Government of India. Head Office in Kokata.

Need Help? Connect Now